সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ০৫:০৫ পূর্বাহ্ন

জামায়াত-শিবির নেতার দাপটে তটস্থ এলাকাবাসী!

Sanu Ahmed
  • Update Time : সোমবার, ১০ এপ্রিল, ২০২৩
  • ৩৭১ Time View

 

 

আশিকুর রহমান, স্টাফ রিপোর্টার :-

আমিনুল ইসলাম মুরাদ ও তার ছেলে কাজী হোসাইন আহমেদ নামে জামায়াত-শিবির নেতার দাপটে তটস্থ হয়ে পড়েছে নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলার মির্জানগর ইউনিয়নের পূর্বকান্দি গ্রামবাসী। আওয়ামীলীগের অভিযুক্ত অনুপ্রবেশকারী এবং জামায়াত-বিএনপির নেতা-কর্মীদের সাথে নিয়ে এলাকায় আধিপত্য বিস্তার করে চলেছেন তিনি ও তার ছেলে। এমটাই অভিযোগ করেন গ্রামবাসী।তবে আমিনুল ইসলাম মুরাদ এ অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন বলে দাবি করেন।জানা যায়, রায়পুরা উপজেলার মির্জানগর ইউনিয়নের পূর্বকান্দি গ্রামের মৃত সামসু উদ্দিনের ছেলে আমিনুল ইসলাম মুরাদ (৫২)। তিনি ১৯৮৯ সালে পাশ্ববর্তী ইউনিয়ন আদিয়াবাদ ইসলামিয়া উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পাশ করেন। পরে তিনি এইচএসসি পাঠদানের জন্য নরসিংদী সরকারি কলেজে ভর্তি হন। লেখাপড়া চলাকালীন অবস্হায় তিনি বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে সৈনিক হিসেবে যোগদান করেন। কয়েক বছর চাকরি করার পর তিনি স্বেচ্ছায় সেনাবাহিনী থেকে চাকরি ছেড়ে চলে আসেন। ২০০১ সালে বিএনপি-জামাত জোট সরকার ক্ষমতায় আসলে তিনি জামায়ত-শিবিরের রাজনীতিতে সক্রিয় হয়ে ওঠেন। মির্জানগর ইউনিয়ন জামায়তের সভাপতির দ্বায়িত্ব পালন করেন এবং নিজ পূর্বকান্দি গ্রামের গ্রাম সরকারও নির্বাচিত হন। বিএনপি-জামাত জোট সরকারের পতন হলে গ্রেপ্তার এড়াতে তিনি গা ডাকা দিতে গ্রাম ছেড়ে চলে আসেন। নরসিংদী শহরের বীরপুর এলাকায় পরিবার-পরিজন নিয়ে বসবাস করার কারণে দীর্ঘদিন তিনি গ্রামের সাথে যোগাযোগ বিছিন্ন হয়ে পড়েন। বর্তমানে আওয়ামী লীগ সরকার টানা তিনবার ক্ষমতায় থাকার সুবাদে তার ছোট ভাই কাজী শহিদুল ইসলাম আজাদ মির্জানগর ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য হওয়ার সুবাদে তিনি আবার গ্রামে প্রবেশ করেন। গ্রামে প্রবেশ করেই ১৪৯ নং কাজী সামসু উদ্দিন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি ও গ্রাম উন্নয়ন কমিটিরও সভাপতির দায়িত্ব হাতিয়ে নেন। গ্রামে তার একচ্ছত্র আধিপত্য বিস্তারের কারণে সালিশি-দরবারে নিয়মনীতি তোয়াক্কা না করেই মনগড়া মতন রায় প্রদান করে থাকেন। এতে করে গ্রামবাসীর মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়। তার এধরনের কর্মকাণ্ডে ভয়ে কেউ প্রতিবাদ করতে সাহস পায় না বলে জানান স্থানীয়রা।নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয় আ’লীগ নেতা অভিযোগ করে বলেন, রায়পুরা উপজেলার মির্জানগর ইউনিয়নের পূর্বকান্দি গ্রামের মৃত সামসু উদ্দিনের ছেলে আমিনুল ইসলাম মুরাদ ২০০১ সালে ইউনিয়ন জামায়াতের সভাপতি ও গ্রাম সরকার ছিলেন। তখন জামায়াত-শিবিরের অফিস ছিলো মির্জানগর ইউনিয়নের খানাবাড়িতে। দীর্ঘদিন গ্রামে অনুপস্থিত থাকলেও তার ভাইয়ের সুবাদে আবার এলাকায় বিপদগ্রামী জামাত-বিএনপি ঘেঁষা লোকজন নিয়ে এলাকায় প্রভাব বিস্তার করে আসছেন। এসব অভিযুক্ত নেতা-কর্মীদের সঙ্গে নিয়ে একের পর এক অপকর্ম করলেও প্রশাসন কোন ব্যবস্থা নেয়নি।
সরজমিনে দেখা যায়, জামায়তে ইসলামের নেতা আমিনুল ইসলাম মুরাদ এর ছেলে ছাত্র শিবির নেতা কাজী হোসাইন আহমেদ সম্প্রতি গত মঙ্গলবার (৪ এপ্রিল) গোপন সংবাদের ভিত্তিতে নাশকতার অভিযোগে বিস্ফোরক আইনে পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হন। নরসিংদী মডেল থানা পুলিশের দায়েরকৃত মামলা নম্বর ৬(২)২৩। ধারা:- ১৯০৮ সনের বিস্ফোরক আইনের ৩/৪/৬। এসময় গ্রেপ্তারকৃত আসামীদের কাছে থেকে ককটেল তৈরির সরঞ্জাম ও গান পাউডার উদ্ধার করা হয়। উক্ত মামলায় ছেলে ও বাবা দুজনেই গ্রেপ্তার হয় বলেও শুনা যায়। বর্তমানে ছেলে জেল হাজতে থাকলেও বাবা জামিনে মুক্তি পান।
স্থানীয় গ্রামবাসী বলেন, কিছুদিন আগে বাবা-ছেলে শিবির করার অভিযোগে নরসিংদী থেকে তাদের দুজনকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে। মুরাদ আগে থেকেই জামাত করতো। ছেলে বর্তমানে শিবিরের নেতা। ছেলের ভরসায় মুরাদ গ্রামে একের পর এক অন্যায় অবিচার করে চলেছে বলে জানান।
অভিযুক্ত আমিনুল ইসলাম মুরাদ দাবী করে তার মুঠোফোনে প্রতিনিধিকে বলেন, জামাত-শিবির নেতার ব্যাপারে তিনি কিছু জানেন না। আমার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। আমি কোন সময় কোনদিন রাজনীতি করি নাই। গ্রামের উন্নয়ন করতে গিয়ে কিছু লোক আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা কথা বলে বেড়াচ্ছে। আমার বাবা সামসু উদ্দিনের দান করা জমিতে প্রাথমিক বিদ্যালয় স্হাপিত হয়। সেই সুযোগে আমি অত্র বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটির সভাপতি হয়েছি এবং পাশাপাশি ৫নং ওয়ার্ড পূর্বকান্দি গ্রামের গ্রাম উন্নয়ন কমিটির সভাপতিও আমি। বিশেষ করে পূর্বকান্দি গ্রামে কিছু উন্নয়নমূলক কাজ করাকে কেন্দ্র করে গ্রামের কিছু লোক আমার বিরোধিতা করে এধরনের অভিযোগ তুলছেন। আমার ছোট ভাই বর্তমান ইউপি সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। আমি স্বেচ্ছায় ও পারিবারিক কারণে সেনাবাহিনী থেকে চলে আসি।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2023 Coder Boss
Design & Develop BY Coder Boss
themesba-lates1749691102