শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ০২:০৩ পূর্বাহ্ন

জেম হত্যা মামলার আরও ৫ আসামী গ্রেপ্তার, হত্যায় ব্যবহৃত হাতুড়ি উদ্বার

Sanu Ahmed
  • Update Time : মঙ্গলবার, ২৫ এপ্রিল, ২০২৩
  • ২৮৭ Time View

 

তাজরিন খান চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধিঃ

চাঁপাইনবাবগঞ্জে পৌরসভার সাবেক কাউন্সিলর ও সাবেক যুবলীগ নেতা খাইরুল আলম জেমকে কুপিয়ে হত্যা মামলার আরও ৫ আসামীকে গ্রপ্তার করেছে ডিবি পুলিশ। মঙ্গলবার (২৫ এপ্রিল) দুপুর ০২টার দিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করে পুলিশ।

সোমবার (২৪ এপ্রিল) দিবাগত রাতে দেশের বিভিন্ন স্থানে জেলা পুলিশের বিশেষ শাখা-ডিবি পুলিশ ও থানা পুলিশের যৌথ অভিযানে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়। অভিযানে হত্যাকান্ডে ব্যবহার করা হাতুড়ি উদ্বার করেছে পুলিশ। এছাড়াও আসামীদের দেয়া তথ্য মতে, রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার রেলবাজার এলাকা থেকে হত্যায় ব্যবহৃত তিনটি মোটরসাইকেল উদ্বার করেছে পুলিশ।

গ্রেপ্তারকৃত আসামীরা হলেন- জেলা শহরের হুজরাপুর কাজীপাড়া মহল্লার মৃত এঁচানের ছেলে মো. মিলন ওরফে বেলাল ইসলাম (৩৫), একই এলাকার মৃত আব্দুল লতিফের ছেলে মো. সাজু ইসলাম (২৮), হুজরাপুর রেলবাজার মহল্লার মৃত বিশুলাল চৌধুরীর ছেলে নিতাই চৌধুরী (৪৫), সদর উপজেলার গোবরাতলা ইউনিয়নের বেহলা গ্রামের মাজাহারুল ইসলামের ছেলে মো. রানা ওরফে ছোট রানা (৩০) ও জেলা শহরের বড় ইন্দারা মোড় এলাকার মৃত আব্দুল ওয়াদুদের ছেলে মো. নূর আলম ওরফে আলম (৩২)।

সংবাদ সম্মেলনে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবুল কালাম সাহিদ বলেন, খাইরুল আলম জেম হত্যার পর থেকে এজাহারভুক্ত আসামীরা আত্মগোপনে চলে যায়। পরবর্তীতে তথ্য-প্রযুক্তি-ও গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে গতকাল সোমবার দিবাগত রাতে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে এই ৫ আসামীকে গ্রেপ্তার করা হয়। বাকি আসামীদেরকেও গ্রেপ্তার করতে অভিযান অব্যাহত রেখেছে পুলিশ।

পুলিশ সুপার আরও বলেন, গ্রেপ্তারকৃত আসামিদের মঙ্গলবার যেকোন সময়ের মধ্যে আদালতে সোপর্দ করা হবে এবং পুলিশের পক্ষ থেকে রিমান্ডের আবেদন করা হবে। রিমান্ড আবেদন মঞ্জুর হলে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদের মাধ্যমে খাইরুল আলম জেমকে হত্যার রহস্য বেরিয়ে আসবে। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে ও মানুষের জানমালের নিরাপত্তা দিতে পুলিশ বদ্ধপরিকর রয়েছে বলে জানান, পুলিশের এই কর্মকর্তা। এসময় সকল স্তরের মানুষের সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।

এর আগে গত রবিবার (২৪ এপ্রিল) দিবাগত রাতে জেলা কৃষকলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মেসবাউল হক টুটুলসহ ৫ জন আসামীকে আটক করে পুলিশ। এনিয়ে এই হত্যা মামলায় মোট ১৪ জন আসামীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

হত্যাকাণ্ডের তিন দিন পর গত রবিবার (২২ এপ্রিল) রাত ২টার দিকে খাইরুল আলম জেমের বড় ভাই মনিরুল ইসলাম বাদী হয়ে সদর মডেল থানায় ৪৮ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন।

উল্লেখ্য, বুধবার (১৯ এপ্রিল) চাঁপাইনবাবগঞ্জের উদয়নমোড় এলাকায় ইফতারির বাজার করার সময় দুর্বৃত্তরা খায়রুল আলম জেমকে দেশী-বিদেশী ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাথাড়ি কুপিয়ে জখম করে। পরে স্থানীয়রা আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেলা হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে অবস্থার অবনতি হলে তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার প্রক্রিয়াকালে তার ‍মৃত্যু হয়। পরদিন হত্যার সঠিক বিচার দাবিতে মরদেহ নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল ও মহাসড়ক অবরোধ করেন স্বজনরা।

এদিকে ঈদের পরের দিন ২২ এপ্রিল শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় পৌর এলাকার বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সেতুর বারোঘরিয়া প্রান্তে ফুচকা খাওয়াকে কেন্দ্র করে কিশোর গ্যাং এর ছুরিকাঘাতে নিহত ফাহাদের হত্যাকারীদের ২ জনকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে পুলিশ।
গ্রেফতারকৃতরা হলো- জেলার সদর উপজেলার বারোঘরিয়া ইউনিয়নের কাজীপাড়া এলাকার সনু মিয়ার ছেলে রহিদ বাবু ওরফে সাব্বির (২০) এবং শাহিন শেখের ছেলে রাকিব আলী ওরফে রাজন (১৯)।

নিহত ফাহাদ (১৬) চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর এলাকার মসজিদ পাড়া মহল্লার মনিরুল ইসলামের ছেলে। ঈদের পরের দিন বন্ধুরা মিলে বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সেতুর বারোঘরিয়া প্রান্তে বেড়াতে গেলে সেখানে ফুচকা খাওয়াকে কেন্দ্র করে ওই এলাকার কিছু কিশোরের সাথে তাদের বাকবিতন্ডা হয়। এ সময় গ্রেফতার আসামীরা ফাহাদ ও তার দুই বন্ধুকে ছুরিকাঘাত করলে তাদের ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট চাঁপাইনবাবগঞ্জ আধুনিক হাসপাতালে নিয়ে আসলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করে ফাহাদ।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2023 Coder Boss
Design & Develop BY Coder Boss
themesba-lates1749691102